অ্যাপ তৈরি করে কিভাবে আয় করা যায় ?

অ্যাপ তৈরি করে কিভাবে আয় করা যায় ?

অ্যাপ তৈরি করে কিভাবে আয় করা যায় ?

বর্তমান বিশ্বে অ্যাপ একটি নিত্য ব্যবহার করার বস্তু। যারাই স্মার্ট ফোন ব্যবহার করেন তারাই জানেন অ্যাপ আসলে কি উপকারি । একটা অ্যাপ তৈরি করে অনেকেই লাখ লাখ টাকা আয় করতেছেন। এখনো এই অ্যাপ তৈরি করার সেক্টর অনেক খালি আছে। নতুন নতুন বিষয়ে অ্যাপ বানিয়ে আপনিও আয় করতে পারবেন। তবে এজন্য খুজতে হবে মানুষের সমস্যা । সেই সমস্যাকে সমাধান করে অ্যাপ বানিয়ে আপনিও হতে পারেন একজন সফল অ্যাপ উদ্যোক্তা।

কিভাবে তৈরি করবেন অ্যাপ ?

অ্যাপ তৈরি করতে আপনাকে দুইটি পথ বেচে নিতে হবে। প্রথম পথ হলো আপনি নিজেই ডেভলাপার হতে পারেন। আর দ্বিতীয় পথ হলো কোন ভালো   ডেভলাপার দিয়ে অ্যাপ বানিয়ে নিতে পারেন।

কিভাবে নিজে ডেভলাপার হয়ে অ্যাপ বানাবেন

আপনি যদি নিজে ডেভলাপার হয়ে অ্যাপ বানাতে চান তবে আপনার সময় লাগবে অন্তত ২ বছর। প্রথমে আপনাকে শিখতে হবে HTML, CSS, JAVA,PHP, Android Studio ইত্যাদি । এসব না সিখেও বাসিক শিখে আপনি অ্যাপ বানাতে পারবেন কিন্তু সেটা তেমন কোন ভালো অ্যাপ হবেনা। ধরুন আপনি একটা বই কে অ্যাপ বানাতে চান । এটা তেমন কোন কঠিন কোড লেখা লাগবেনা। কিন্তু আপনি একটা ওয়েবসাইট বানাবেন যেখানে অনেক বই স্টোর করা থাকবে। কেউ এই অ্যাপে চাইলে বই পাবলিশ করতে পারবে। পাবলিশ বই পড়তে হলে আপনাকে মাসিক একটা সাবস্ক্রিপ্সন দিতে হবে। তাহলে এর জন্য অবশ্যই আপনাকে  HTML, CSS, JAVA,PHP, Android Studio শিখতে হবেই। নরমাল HTML, CSS, JAVA সিখেই এই ধরনের অ্যাপ তৈরি করতে পারবেন না।

আপনি চাইলে যে কোন একটা প্রতিষ্ঠান থেকে HTML, CSS, JAVA,PHP, Android Studio ইত্যাদি শিখে অ্যাপ তৈরি করে পরিপূর্ণ অ্যাপ তৈরি করে পাবলিশ করতে পারবেন অথবা অনলাইন থেকে HTML, CSS, JAVA,PHP, Android Studio ইত্যাদি শিখার কোর্স নামিয়ে সেগুলি শিখে অ্যাপ তৈরি করতে পারেন।

 

কিভাবে ডেভলাপার দিয়ে অ্যাপ বানিয়ে পাবলিশ করবেন ?

ধরুন আপনার কাছে অনেক সুন্দর একটি অ্যাপ তৈরির আইডিয়া আছে। আপনি চাচ্ছেন সেই আইডিয়া দিয়ে একটি অ্যাপ তৈরি করে প্লে স্টোরে পাবলিশ করবেন। এবারের কাজ হলো আপনার আসে পাশে ভালো কোন ডেভলাপারদের সাথে কথা বলা। তবে ওয়েবসাইট তৈরি করা থেকে অ্যাপ তৈরি করতে অনেক বেশী খরচ হবে। নরমালি একটা লজিকাল অ্যাপ বানাতে ৫০ হাজার থেকে কোটি টাকাও খরচ হতে পারে। এজন্য আপনাকে অনেক চিন্তা ভাবনা করেই অ্যাপ তৈরি করতে হবে। এর পর অ্যাপ তৈরি করে সেটা বিভিন্ন সময়ে আপডেট করার একটা বিষয় থাকে। সেখানেও আপনাকে অনেক খরচ করতে হবে।

 

আমার দৃষ্টিতে নিজে অ্যাপ বানিয়ে সেটা পাবলিশ করাটা অনেক ভালো। কারন ডেভলাপারদের দিয়ে অ্যাপ বানালে আপনাকে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে। প্রথমত হলো ডেভলাপারদের চাহিদার কোন শেষ নেই। সুযোগ বুঝে তারা কোটি টাকা চেয়ে বসবে। অনেকেই আছেন যারা ঠেকিয়ে টাকা আদায় করেন কাস্টমারদের থেকে। একটু কষ্ট হলেও আপনি নিজেই যদি কোডিং শিখে অ্যাপ তৈরি করতে পারেন।

কি নিয়ে তৈরি করবেন মোবাইল অ্যাপ ?

আসলে প্রথমেই বলেছি যে মোবাইল অ্যাপ তৈরি করবেন মানুষের সমস্যা সমধানে। যেমন আমাদের দেসে অনেক বছর আগে আমাদের দেসে তৈরি হয় পাঠাও নামে একটা অ্যাপ। এই অ্যাপ আমাদের দেশে এই অ্যাপ অনেক সফল হয়। তাদের উদ্দেশ্য ছিলো মানুষের জাতায়ত সেবা সহজ করা। প্রচুর সাড়া পায় এই অ্যাপ । এবং সেখান থেকে শত কোটি টাকা তারা আয় করে। এভাবে আপনি অনেক কিছু নতুন আইডিয়া নিয়ে কাজ করতে পারবেন। সবসময় মাথায় রাখতে হবে কি নতুন আইডিয়া নিয়ে কাজ করা যায়।

কেমন আয় করতে পারবেন মোবাইল অ্যাপ থেকে ?

প্রথমেই বলেছি যে একটা অ্যাপ দিয়ে আপনি কোটি টাকা আয় করতে পারবেন। তবে ছোট খাট একটা লজিক বিহীন অ্যাপ তৈরি করে আপনি অনেক আয় করতে পারবেন যদি সেটা অনেক বেশী ডাউনলোড হয়ে যায়। অ্যাডমভ বসিয়ে আপনি গুগলের অ্যাড দেখিয়ে আয় করতে পারবেন।  তবে অ্যাডমভ থেকে আয় করা অনেক কঠিন। কারন আজকাল ইউজাররা ইন্টারনেট ওপেন করে অ্যাপ ব্যবহার করেন না। ফলে অ্যাড শো করেনা। তেমন বেশী ডাউনলোড না হলে যত সামান্য আয় হবে। এজন্য এমন অ্যাপ দরকার যেটাতে ইন্টারনেট সংযোগ প্রয়োজন হয় চালাতে।