প্রিন্ট অন ডিমান্ড ব্যবসা কি ? কিভাবে শুরু করবেন প্রিন্ট অন ডিমান্ড ব্যবসা ?

প্রিন্ট অন ডিমান্ড ব্যবসা

প্রিন্ট অন ডিমান্ড

বর্তমানে প্রিন্ট অন ডিমান্ড একটি ভালো ব্যবসা। অনেকেই চান যে ভালো ডিজাইনার দিয়ে নিজের জন্য বিভিন্ন পণ্যে ডিজাইন করে নিতে। যেমন মগ, পিলো , টিশার্ট, ডাইরি, মোবাইলের ব্যাক কভার এবং আরও অনেক কিছু । অনলাইনে অনেক ওয়েবসাইট আছে যারা এসব ডিজাইন বিক্রি করে ভালো পরিমাণ আয় করতেছেন। একজন ডিজাইনার এসব ওয়েবসাইটে তাদের ডিজাইন গুলি অ্যাড করে থাকেন এবং সেটি সেল হলে ওয়েবসাইট থেকে সেই পণ্যটি বায়ারের চাহিদা অনুযায়ী প্রিন্ট করে সরবরাহ করে থাকে। আর ডিজাইনারের জন্য একটা লাভের অংশ থাকে।

প্রিন্ট অন ডিমান্ড ব্যবসা আসলে কি ?

প্রিন্ট অন ডিমান্ড হলো এমন এক ধরনের ব্যবসা যেখানে কোনো অনলাইন ব্যবসায়ী বিভিন্ন ডিজাইনার, আর্টিস্ট এবং এমনকি ফটোগ্রাফার দিয়ে ইউনিক ডিজাইন তৈরি করেন । এসব ডিজাইন সেই অনলাইন ব্যবসায়ীরা কোনো অনলাইন স্টোরে সেল করে থাকেন সেই ডিজাইনগুলো মগ, পিলো , টিশার্ট এবং আরও অনেক কিছুর উপর প্রিন্ট করে।

প্রিন্ট অন ডিমান্ডে অডিয়েন্স অর্ডার করার পর সেই অর্ডারের উপর ভিত্তি করে প্রিন্ট হয় । প্রিন্ট অন ডিমান্ড ব্যবসায় পণ্য স্টক করার কোনো প্রয়োজন নেই। অর্ডার পাওয়ার পর প্রিন্ট করে পণ্য শিপিং করা হয়।  তবে অনেক সময় পণ্য ডেলিভারি করতে শিপিং চার্জ নেওয়া হয়না। এতে করে কাস্টমারের চাহিদা বেড়ে যায়।

প্রিন্ট অন ডিমান্ড মার্কেট প্লাটফর্মে খুব সহজেই অনলাইনে একটি স্টোর সেটআপ করে নিতে পারবেন।  এর পর সিম্পলি এসব স্টরে আপনার ক্রিয়েটিভ ডিজাইনগুলো আপলোড করে আপনার ডিজাইন গুলি সেল করতে পারবেন। এখানে অনেক গুলি টেম্পলেট দেয়া আছে। আপনি আপনার ডিজাইন গুলি যখন আপলোড করবেন তখন কোন প্রোডাক্টগুলো আপনি সেল করতে চান তা আপনি সিলেক্ট করে দিতে পারবেন। আপনার অর্ডারের ফুলফিলমেন্ট অথবা শিপিংয়ের দিকটি নিয়ে কোনো চিন্তা করতে হবে না কারণ আপনার প্ল্যাটফর্মটি সেই সবগুলো কাজ আপনার পক্ষ থেকে করে দিবে।

কিভাবে শুরু করবেন প্রিন্ট অন ডিমান্ড ব্যবসা ?

দুই ভাবে আপনি এই ব্যসবা শুরু করতে পারবেন। নিজে একটি ওয়েবসাইট খুলে প্রিন্ট অন ডিমান্ড ব্যসবা শুরু করতে পারবেন অথবা সোশ্যাল মিডিয়া দিয়ে ব্যসবা করতে পারবেন। অনেক ওয়েবসাইট আছে যারা ডিজাইনার থেকে ডিজাইন নিয়ে তাদের ওয়েবসাইটে পাবলিশ করে । এবার কাস্টমার থেকে অর্ডার পেলে সেই অর্ডারগুলি প্রিন্ট করে সাপ্লাই করা হয়। আপনি চাইলে এসব ওয়েবসাইটে একটা একাউন্ট খুলে আপনার ডিজাইন গুলি আপলোড করতে পারেন। তবে সেখান থেকে আপনি বিক্রির সকল টাকা পাবেন না। আপনার পণ্য বিক্রি থেকে একটা অংশ কেটে রাখা হবে। teespring.com হলো এমন একটি ওয়েবসাইট। এই ওয়েবসাইটে আপনি আপনার ডিজাইন গুলি  আপলোড করতে পারবেন খুব সহজেই। এবার কাস্টমার সেখানে অর্ডার করলে   teespring.com পণ্যের উপর ডিজাইন প্রিন্ট করে সরবরাহ করে হবে। USA তে প্রিন্ট অন ডিমান্ড সবচেয়ে বড় প্রতিষ্ঠান হলো  teespring.com । এখানে সারা বিশ্বের ডিজাইনার রা তাদের পণ্যের ডিজাইন করে আপলোড করে থাকেন। এখানে আপনি আপনার ডিজাইন গুলি সেল করতে পারবেন অতি উচ্চ মূল্যে ।

কিভাবে প্রিন্ট অন ডিমান্ড ব্যবসার কাস্টমার সংগ্রহ করতে হয়?

প্রিন্ট অন ডিমান্ড ব্যবসার কাস্টমার সংগ্রহ করা একটু কঠিন।কারন আপনি একটা ওয়েবসাইট বানিয়েই সেখানে প্রচুর কাস্টমার পাওয়া খুব কঠিন।  প্রিন্ট অন ডিমান্ড ব্যবসার কাস্টমার সংগ্রহ  করতে আপনি ব্যবহার করতে পারেন ফেসবুক বিজ্ঞাপন, গুগল বিজ্ঞাপন, ইন্সটাগ্রাম বিজ্ঞাপন এবং লোকালি অফলাইনে বিজ্ঞাপন।

কিভাবে ফেসবুক থেকে প্রিন্ট অন ডিমান্ড ব্যবসার কাস্টমার সংগ্রহ করবেন ?

ফেসবুক থেকে প্রিন্ট অন ডিমান্ড  ব্যবসার কাস্টমার সংগ্রহ করা খুব সহজ কাজ। প্রথমে আপনার একটা ভালো বাজেট করতে হবে। যেমন আপনি একটা পণ্য বিক্রি করতে চান যার আর্থিক মূল্য ৫০ ডলার। এবার আপনাকে চিন্তা করতে হবে আপনি এই ৫০ ডলার পণ্য বিক্রি করে কত টাকা লাভ করতে চান। আপনি যদি ১০ ডলার লাভ করেন তবে এই পণ্যের জন্যে ৫ ডলার অনায়সে খরচ করতে পারবেন। আপনার টার্গেট থাকবে ৫ ডলার ফেসবুকে খরচ করে আপনি আয় করবেন ৫ ডলার। তাহলে আপনার যে টাকা ইনভেস্ট করলেন সে টাকা চলে আসবে। কিন্তু আপনার ওয়েবসাইট গুগলে রাঙ্কিং চলে আসবে। যেটা আপনার ওয়েবসাইটের জন্য অনেক ভালো হবে। এখন যদি আপনি চান আপনি প্রতি মাসে ঐ পণ্য ১০০ টা বিক্রি করবেন। তাহলে আপনার বাজেট হবে ৫০০ ডলার। এটা হচ্ছে ধারনা করা বাজেট। কিন্তু ৫০০ ডলার আপনি ফেসবুকে খরচ করলে ১০০ পণ্যের উপরে সেল করতে পারবেন খুব সহজেই।

কিভাবে গুগল বিজ্ঞাপন থেকে প্রিন্ট অন ডিমান্ড ব্যবসার কাস্টমার সংগ্রহ করবেন ?

গুগল বিজ্ঞাপন থেকে প্রিন্ট অন ডিমান্ড ব্যবসার কাস্টমার সংগ্রহ করাটা ফেসবুক থেকে কঠিন হবে। আপনি এখানে কয়েক ভাবে কাস্টমার আকৃষ্ট করতে পারবেন। যেমন, গুগলের সার্চ ইঞ্জিন থেকে। আবার ডিসপ্লে অ্যাড থেকে। সাধারণত মানুষ পণ্য ক্রয় করতে প্রথমেই গুগলে সার্চ করে থাকে। সোশ্যাল নেটওয়ার্ক সাইট গুলিতে মানুষ আসে বিনোদন নিতে বা যোগাযোগ রক্ষা করতে। এখানে পণ্য বিক্রি করাটা একটু কঠিন। তবে সার্চ ইঞ্জিন গুলিতে মানুষ আসে পণ্য খুজতে। কিন্তু এখানে প্রতিযোগিতা অনেক বেশী। এখান থেকে একটা কাস্টমার পেতে আপনাকে অনেক টাকা খরচ করতে হবে। এখানে আপনি নির্ধারণ করে দিতে পারবেন আপনার টাকা কিভাবে খরচ হবে একজন কাস্টমার তৈরির ক্ষেত্রে।

যেমন আপনি একটা ডিজাইন বিক্রি করবেন। এটার বাজার মূল্য ১০ ডলার। এখন এটার কি ওয়ার্ড গুগল অ্যাডে দিবেন। আপনি যত বেশী বিড করতে পারবেন তত বেশী আপনার ওয়েবসাইট কাস্টমারের কাছে পৌঁছানোর সুযোগ আছে। আপনি যদি প্রতি ক্লিকের জন্য ৫০ সেন্ট বিড করেন তবে আপনার অ্যাড সবার আগে থাকার সুযোগ থাকে প্রচুর।

আবার আপনি যখন গুগলে ডিসপ্লে অ্যাড দিবেন তখন গুগল আপনার অ্যাড টা আপনার পণ্য রিলেটেড ওয়েবসাইটে দিয়ে দিবে। ফলে একজন কাস্টমার যখন অন্য ওয়েবসাইটে দেখবে আপনার পণ্য অনেক কমে সেল হচ্ছে তখন তারা আপনার ওয়েবসাইটে আসবে। তবে ডিসপ্লে অ্যাড রান করতে অনেক বাজেট দরকার হবে।

কিভাবে লোকালি অফলাইনে বিজ্ঞাপন থেকে প্রিন্ট অন ডিমান্ড ব্যবসার কাস্টমার সংগ্রহ করবেন ?

অফলাইনে বিজ্ঞাপন থেকে প্রিন্ট অন ডিমান্ড ব্যবসার কাস্টমার সংগ্রহ করাটা অনেক সহজ অনলাইন মাধ্যম থেকে। আপনি চাইলে আপনার ওয়েবসাইটের জন্য কিছু লিফলেট, হ্যান্ড বিল, পোস্টার তৈরি করে জনাকীর্ণ এলাকায় লাগিয়ে দিতে পারবেন। রাস্তায় বিলি করতে পারবেন। এটার জন্য আপনার তেমন বেশী খরচ না হলেও এটা বেশ ফলদায়ক। যখন একটা ওয়েবসাইট মানুষ অনলাইন আর অফলাইনে দেখে তখন তারা এটাকে অনেক বিশ্বাসযোগ্য মনে করে থাকে।

কত টাকা ইনভেস্ট করে প্রিন্ট অন ডিমান্ড ব্যবসা শুরু করা যাবে ?

একটা ড্রপশিপিং ব্যবসা শুরু করতে আপনাকে অনেক টাকা ইনভেস্ট করতে হবেনা। ডোমেইন আর হস্টিং, ডিজাইন মিলে ৫০০ ডলার হলেই আপনি একটা ওয়েবসাইট খুলে এই ব্যবসা শুরু করতে পারবেন। এর পর আপনার বিজ্ঞাপনে খরচ অনুযায়ী আপনার আয় আসা শুরু হবে। বিজ্ঞাপনে আপনি যত বেশী খরচ করবেন আপনার ওয়েবসাইট খুব দ্রুত সেল করা শুরু করবে।